সূত্রবিহীন সংবাদ; বিভ্রান্ত পাঠক

  ৩১, মার্চ ২০১৬  |    Online Desk, Slider, বিশেষ প্রতিবেদন, সম্পাদকীয়  |    1330

তনু ইস্যু; সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তৎপর। তৎপর গণমাধ্যম টিভি, পত্রিকা, অনলাইন। পত্রিকার নিউজ আর টেলিভিশনের সংবাদ পরিবেশন করা হচ্ছে সূত্র উল্লেখ করে। কিন্তু অনলাইন পোর্টালগুলো প্রতিনিয়তই নতুন নতুন খবর দিচ্ছে। যাদের সবার সংবাদই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে একই। তবে পার্থক্য শুধু শিরোনামে। যদিও শিরোনামের সাথে নেই ভেতরের খবর অর্থাৎ বডির কোনো মিল। আর নেই কোনো সূত্র।

tonu
কিছু কিছু পোর্টাল আবার, একটা রক্তমাখা ছবি পোস্ট করে দাবী করছে সেটা নাকি তনুর। একইসাথে তারা বলছে জঙ্গলে নয় তনুকে ধর্ষণ করা হয় একটা বাসার মধ্যে। রক্তমাখা লাশটির ছবি যে বাসার সেখানেই ধর্ষণ করা হয় তনুকে। তবে সেই বাসারর নম্বর বা অবস্থান সম্পর্কে কোনো তথ্য নেই সেসব সংবাদে। তারপরও খবরে দাবী করা হয় রক্তমাখা পায়ের ছাপগুলোই হলো ঘাতকেরই পায়ের ছাপ। অনেকে আবার তনুকে ধর্ষকের সংখ্যাও প্রকাশ করেছে। কেউ বলছে ঘটনার সময় উপস্থিত ছিলেন ৩ জন আবার কেউ বলছে ৫ জন। এসব সংবাদ তারা কোথা থেকে পেলো তার কোনো সূত্র দেয়া নেই। অনলাইন পোর্টালগুলো এমন সূত্রছাড়া সংবাদ দিয়েই যাচ্ছে একের পর এক।tanu rape case
আবার কোনো এক পোর্টালের শিরোনাম- ’আমি তনুর বন্ধু বলছি। সব বলবো সেদিনের ঘটনা।’ এমন শিরোনাম দেখে যে কেউই নিউজটা পড়বেই। কিন্তু ভেতরে যা লেখা আছে তার কোনো ভিত্তি খুজে পাবে না; পাঠক উল্টো বিভ্রান্ত হবে- এটা নিশ্চিত।
এসব পোর্টালগুলো আগে তেমন সক্রিয় না থাকলেও, হঠাৎ করেই তনু ইস্যুতে তারা সক্রিয় হয়ে ওঠেছে। তাদের এখন বাজারগরম। নতুন নতুন যেসব তথ্য দিচ্ছে যা গোয়েন্দারাও জানে না। ভাবতেই ভালো লাগে সংবাদকর্মীরা অনেজ করে যাচ্ছে। তদন্তের স্বার্থেই দ্বিতীয় দফা ময়না তদন্তের জন্য সোহাগী জাহান তনুর লাশ কবর থেকে তোলা হয়েছে। পুনরায় ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে একই কবরে তাঁর লাশ দাফন করা হবে।
এমন সময়, বিভিন্ন পোর্টালের প্রতি অনুরোধ সংবাদ পরিবেশনে সতর্ক হোন। অনুসন্ধান করুণ। প্রমাণসহ সংবাদ পরিবেশন করুণ। বলছি চোখ কান খোলা রাখুন। বিভ্রান্ত করার বদলে সোচ্চার হোন অনিয়মের বিরুদ্ধে। গোয়েন্দারা কতোখানি সফল হবে আমার জানা নেই। তবে সংবাদকর্মীরা ব্যর্থ হলে অন্ধকারে ডুবে যাবে পুরো দেশ।

tonu news
অনুরোধ গণমাধ্যমের প্রতি নিজেদের টিআরপি বাড়ানোর জন্য চটকদারি শিরোনাম দিয়ে সংবাদ বানাবেন না।কারণ তনু ইস্যুটি স্পর্শকাতর। কারো কোনো ভূল তথ্যে যেনো বিভ্রান্ত না হয় তদন্ত সংস্থা বা জনগণ। সবাই তাকিয়ে আসে, তনু হত্যার তদন্তের দিকে।
দাবীও সবার একটাই, তনু হত্যার বিচার।

সম্পাদকীয় জে মা ৩১০৩২০১৬

স্বাধীণতা মাসেই আঘাত; রক্তাক্ত বাংলা

সংশ্লিষ্ট খবর

গানের ঝড় তুলবে ‘দিলওয়ালে’

  ১৮, ডিসে ২০১৫  |    1155

নেতিবাচক মানুষদের চেনার উপায়

  ২৪, ডিসে ২০১৫  |    380

ক্লান্তির চেয়ে আনন্দই বেশি

  ২০, ফেব্রু ২০১৫  |    755