বাঁশি ছেড়ে মহিলা রেফারি বিকিনিতে ম্যাগাজিন কভারে

  ১৯, ফেব্রু ২০১৫  |    Online Desk, ডেস্ক রিপোর্ট  |    734

রেফারি হিসাবে তাঁর বেশ সুনাম রয়েছে। মাঠের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত বাঁ‍শি মুখে সজাগ দৃষ্টিতে ঘোরেন তিনি। ইটালির সেই মহিলা রেফারি বাঁশি ছেড়ে এবার সটান বিকিনি পরে হাজির হলেন ম্যাগাজিনের কভারে। তাঁর নাম ক্লদিয়া রোমানি। একদিকে তিনি যেমন নামজাদা মডেল, তেমনই তিনি নামকরা রেফারি। ক'দিন রেফারিগিরি থেকে ছুটি নিয়েছেন। আর ঠিক করলেন চ্যারিটির কাজ মডেলিংয়ে করবেন। আর সেটা হবে আরও একটু খোলামেলা পোশাকে। ব্যস, যেমনভাবা তেমন কাজ। মোটা অর্থের চুক্তিতে নামকরা এক ম্যাগাজিন বিকিনি পরে নেমে পরলেন রেফারি। ২০০৬ থেকে ২০১০ পর্যন্ত বিশ্বের সেরা ১০০ লাস্যময়ী মডেলের তালিকায় থাকা রোমানি হঠাৎ করেই নিজের পেশাকে বিদায় জানিয়ে এখন পুরোদস্তুর পেশাদার রেফারি।
গত বছর ইতালির সিরি-এ তে বাঁশি অভিষেক হয় ক্লদিয়ার। তাঁকে নিয়ে তখন হইচই পরে গিয়েছিল। ইতালিতে জন্ম হলেও রোমানির ছেলেবেলা কেটেছে ডেনমার্কে। মডেল হয়ে র‌্যাম্পে হাঁটারও শুরু সেখানে। তবে এরপর তিনি কাটিয়েছেন মায়ামিতেই।
ইউরোপের নামী মডেল হিসেবেই চিহ্নিত ছিলেন এই সুন্দরী। কিন্তু হঠাৎই ফুটবলের প্রতি তার মোহ জন্মায়। একের পর এক পরীক্ষা দিয়ে তিনি এখন এক শিক্ষিত পেশাদার রেফারি। যে কোনও দিনই তিনি সিরি-বি তো বটেই সিরি-এতে ম্যাচ পরিচালনা করার ডাক পেয়ে বসতে পারেন।
ক্লদিয়া রোমানি
ঠিক কি কারণে তিনি রেফারি হওয়াটাকে বেছে নিলেন? ক্লদিয়া বলেছিলেন, ‘আমার চারপাশে ফুটবলাররা দৌড়োবে। আমার কথায় তারা থামবে, এগোবে। এমন দুর্নিবার আকর্ষণেই আমি রেফারি হয়েছি।’
বিশ্বে অন্যতম লিগগুলোর মধ্যে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেই শুধু এখনও পর্যন্ত কোনও নারী রেফারি ম্যাচ করেনি। শিয়ান এলিস নামে এক নারী ফুটবলার সহকারী রেফারি হয়েছিলেন।
কিছুদিন আগে বুন্দেশলিগায় বিবিয়ানো স্টেইনহাস নামের এক নারী চতুর্থ রেফারি মাঠে বায়ার্ন মিউনিখ কোচ পেপ গার্দিওলার সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন।
সেখানে সিরি-এ তে রোমানি যখন পিরলো, তেবেজ, বাফন, টট্টিদের সামলাতে মাঠে নামবেন, তখন নিঃসন্দেহে একটা ঝড় বয়ে যাবে। কারণ সন্দেহ নেই, সুন্দরী রোমানি রেফারি হিসেবে মাঠে নামলে, সেই ম্যাচের অনেক আলো তিনি নিজেই টেনে নেবেন। সূত্র: কলকাতা

সংশ্লিষ্ট খবর